শুধুই প্রেমের টানে চলে আসা মালয়েশীয় তরুণী বাংলাদেশে

0
16
শুধুই প্রেমের টানে চলে আসা মালয়েশীয় তরুণী বাংলাদেশে
শুধুই প্রেমের টানে চলে আসা মালয়েশীয় তরুণী বাংলাদেশে

মালয়েশিয়া থেকে একটি ফোন আসে। ওই ফোনের অপরপ্রান্ত থেকে এক বাংলাদেশি দাবি করেন, প্রেমের টানে টাঙ্গাইলের সখীপুরে চলে আসা মালয়েশীয় তরুণী জুলিজা তাঁর স্ত্রী। তাঁদের চার সন্তানও আছে!
শুক্রবার (২৫ আগস্ট) রাতে যখন বিয়ের ধুমধাম চলছিল, তখন ফোনের পরই থেমে যায় সবকিছু।
ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় থেকে প্রেমের সূত্র ধরে জুলিজা গত বৃহস্পতিবার রাতে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেন। সেখান থেকে মা-বাবা ও বোনদের নিয়ে কলেজপড়ুয়া মনিরুল শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে জুলিজাকে নিয়ে সখীপুরে নিজ বাসায় আসেন।
শুক্রবার রাতে মনিরুল-জুলিজার বিয়ের আয়োজন চলছিল। রাত ১১টার দিকে মালয়েশিয়া থেকে আজগর আলী নামে একজন মনিরুলকে ফোন করেন। তিনি নিজেকে বাংলাদেশি পরিচয় দিয়ে জুলিজাকে তাঁর স্ত্রী দাবি করেন। তার দাবি, আজগর-জুলিজা দম্পতির চারজন সন্তান আছে, জুলিজার বয়স ৩২।
মনিরুলের এক স্বজন জানান, শনিবার রাতের ফ্লাইটে তরুণীর মা ছামিনা বাংলাদেশে আসার কথা রয়েছে। তিনি এসে মেয়েকে নিয়ে আবার মালয়েশিয়ায় ফিরে যাবেন। এ খবর মনিরুলের স্বজনেরা জানার পর বিয়ের আয়োজন থেমে যায়। স্বজন-প্রতিবেশীরাও একে একে চলে যান। পরে রাতেই জুলিজাকে মনিরুলের মামা নওশের আলীর হেফাজতে তাঁর বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়।
মনিরুলের বাবা ইমান আলী বলেন, মেয়েটি আমাদের বলেছিল ওর বয়স ২২ বছর। এখন শুনি ৩২। চার সন্তানের মা। ঘটনা সত্য না মিথ্যা বুঝতে পারছি না। ওর মা দেশে এলেই আসল সত্য জানা যাবে।
এদিকে ওই ফোন আসার পর মনিরুলকে বাসায় পাওয়া যায়নি। তাঁর মুঠোফোন নম্বরও বন্ধ। আর জুলিজা শুধুই কান্নাকাটি করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here