যুবতী নারীদের মাধ্যমে মাদক ছড়িয়ে পড়ছে গ্রামে !

0
82
The drug is spreading
প্রতীকী ছবি

রাজশাহীর বাগমারা থানাধীন দক্ষিণ মাঝগ্রাম এলাকার বাসিন্দা হলেন সালমা বিবি (৩২)। তিনি ওই গ্রামের সেফাতুল্যার মেয়ে। শুক্রবার র‌্যাবের একটি দল তার বাড়ি ঘেরাও করে। পরে তল্লাশি চালিয়ে ২ হাজার ২৯০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। সেই সঙ্গে র‌্যাব তাকে গ্রেপ্তারও করে।

শুধু সালমা বিবি না, বাগমারা অঞ্চলে মাদক সিন্ডিকেটে জড়িয়ে পড়েছে নারীরা। প্রত্যন্ত এলাকায় মাদক ছড়িয়ে দিতে এসব নারীরা কাজ করে যাচ্ছে।

পুলিশের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত নারী সিন্ডিকেটের সদস্যরা অত্যন্ত চালাক হয়। সাধারণ দৃষ্টিতে দেখে বোঝার উপায় থাকে না যে ওইসব নারী মাদক বিক্রি ও বহনের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। বোরকা পড়ে তারা গ্রামাঞ্চলে বিভিন্ন নেটওয়ার্কের মাধ্যমে বিক্রি করে চলেছে ইয়াবাসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক।

বাগমারা থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি পুলিশ ও র‌্যাবের কড়া নজরদারিতে কৌশল পাল্টিয়েছে মাদক ব্যবসায়ীরা। এখন তারা নারীদের নিয়ে মাদক বিক্রি ও বহন করছে। এসব নারী বিক্রেতারা মূলত এলাকার ধনাঢ্য ব্যক্তি ও তাদের সন্তানদের টার্গেট করে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

বাগমারা থানার ভারভাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ জানান, র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তারকৃত ইয়াবা পাচারকারী সালমা বিবিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। সালমার স্বামীর বাড়ি কক্সবাজারের টেকনাফ থানায়। সে তার স্বামীর মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ ইয়াবার চালান এলাকায় নিয়ে আসত। তার বিরুদ্ধে কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম আদালত হাফ ডজন মামলা আছে।

সালমা বিবি গ্রেপ্তারের এক মাস আগে উপজেলার ভবনীগঞ্জ পৌরসভার চাঁনপাড়া গ্রামের জুলেখা বেগমকে পুলিশ ১৫০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করে।

ওসি আরও জানান, এলাকার অনেক যুবতী এবং মধ্যবয়স্ক নারীরাও ইয়াবা ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছে। কিন্তু তাদের দেখে বোঝার উপায় নেই। এরাই উপজেলা ব্যাপী বিভিন্ন নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ইয়াবা পৌঁছে দিচ্ছে সেবনকারীদের হাতে। সাধারণত নারী হওয়ায় এবং অনেক সময় নারী কনস্টেবল সঙ্গে না থাকায় তাদের তল্লাশি করা সম্ভব হয় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here