টাঙ্গাইল জেলায় মাদকের আখড়া এখন পার্ক

0
30

 সন্ধ্যার পর লোকজন ওই স্থান এড়িয়ে চলত। কিন্তু এখন সেই স্থানটিই আলোঝলমলে একটি পার্ক। সকাল-সন্ধ্যা সেখানে মানুষ ঘুরে বেড়ায়। শিশুদের জন্য রয়েছে দোলনাসহ বিভিন্ন খেলার সরঞ্জাম। টাঙ্গাইল জেলা পুলিশের উদ্যোগে পার্কটি গড়ে উঠেছে। এর নাম ‘এসপি পার্ক’। আজ সোমবার পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক পার্ক টির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন।

টাঙ্গাইল জেলায় মাদকের আখড়া এখন পার্ক

জেলা পুলিশ বিভাগ সূত্র জানায়, টাঙ্গাইল শহরে পুলিশ লাইনের বিপরীত দিকে লৌহজং নদীর তীরে অবৈধ স্থাপনা ছিল। সেখানকার বস্তিতে বিক্রি হতো মাদক। অপরাধীদের আনাগোনায় সাধারণ মানুষ সন্ধ্যার পর ওই এলাকায় যেতে পারত না। গত বছর পুলিশ সুপারের উদ্যোগে সেখানে একটি পার্ক গড়ে তোলার কাজ শুরু হয়। স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে মতবিনিময় করে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। পরে নদী খনন করে তীর বাঁধাই করে গড়ে তোলা হয় পার্কটি। পুলিশ লাইন মোড় থেকে জেলা কারাগার পর্যন্ত নদীর দুই তীর ঘেঁষে পার্কটির দৈর্ঘ্য প্রায় এক কিলোমিটার। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন না হলেও প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত এখানে দর্শনার্থীদের ভিড় লেগে থাকে। কাকডাকা ভোরে শত শত মানুষ এখানে আসেন হাঁটতে। আজ বিকেলে প্রধান অতিথি হিসেবে আইজিপি এ কে এম শহীদুল হকের পার্কটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। সন্ধ্যায় এখানে লেজার শো ও সংগীতানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

গত শনিবার বিকেলে পার্কটিতে গিয়ে দেখা যায়, অসংখ্য মানুষ হাঁটছে। হেঁটে ক্লান্ত হওয়া লোকজনের জন্য রাস্তার পাশে বসার ব্যবস্থাও রয়েছে। শিশুদের জন্য রয়েছে দোলনাসহ বেশ কিছু খেলার সরঞ্জাম। সাজানো গোছানো পার্কটিতে পরিবার পরিজন নিয়েও অনেককে ঘুরতে দেখা যায়।

শহরের বাসিন্দা আইনজীবী এস আকবর খান বলেন, আগে এই শহরে হাঁটার জন্য ভালো ব্যবস্থা ছিল না। এই পার্ক হওয়ার পর তাঁর মতো ডায়াবেটিক রোগীদের খুব উপকার হয়েছে।

গৃহবধূ শামছুন্নাহার বলেন, পার্কে সব সময় পুলিশ পাহারা থাকে। তাই সবাই নিরাপদে হাঁটতে পারে।

পুলিশ সুপার মাহবুব আলম বলেন, আগে এলাকাটি অপরাধপ্রবণ ছিল। এলাকার মানুষ অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদের মাধ্যমে মাদকের আখড়া নির্মূলের দাবি জানান। ভবিষ্যতে যাতে এই স্থান অবৈধভাবে দখল করে অপরাধীরা কোনো অপকর্মের আখড়া বানাতে না পারে, সে জন্যই দৃষ্টিনন্দন এই পার্ক গড়ে তোলা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here