বোটক্স করিয়ে নিন! জীবনভর ধরা থাকবে যৌবন

0
19

রূপ নিয়ে সতর্ক সকলেই৷ সে নারী হোক কিংবা পুরুষ৷ কিন্তু, বয়সের সঙ্গে সেই রূপেই বাধা হয়ে দাঁড়ায় বলিরেখা৷ এতদিন পর্যন্ত সকলেই ভাবতেন কীভাবে কমানো যায় এই সমস্যা৷ বর্তমানে চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নতি এতটাই হয়েছে যে, বয়সের ছাপ চেহারায় আর একেবারই পড়ে না৷ আর তারই এক অন্যতম উপায় বোটক্স৷ কিন্তু, কী এই বোটক্স? কীভাবে হয় এই চিকিৎসা? কারাই বা করাতে পারেন এটি? সে বিষয়ে kolkata24x7-কে জানালেন খ্যাতনামা ডার্মাটোলজিস্ট

বোটক্স করিয়ে নিন! জীবনভর ধরা থাকবে যৌবন

কী এই বোটক্স?
বোটক্সের আসল নাম বটুলিনাম টক্সিন৷ বোটক্স মূলত একটি টক্সিন উৎপাদনকারী আমেরিকান কোম্পানি৷ তাই লোকমুখে এই চিকিৎসার নামও বোটক্স হয়ে গিয়েছে৷ এটি একধরনের ইনজেকশন৷ সাধারণত মুখের বলিরেখা কমানোর জন্য ছোট সূঁচের মাধ্যমে এটি দেওয়া হয়ে থাকে৷ মুখের পেশিতে এই ইনজেকশন দিয়ে পেশিকে ঘুম পাড়িয়ে দেওয়া হয়৷ ফলে মুখের ভাঁজ অনেক কম হয়ে যায়৷ ছ’মাস বোটক্সের প্রভাব থাকে৷ এরপর মুখের বলিরেখা আবার আগের মতই ফিরে আসে৷ তাই, প্রতি ছয় মাস অন্তর এই বোটক্স নিতে হয়৷

শরীরের কোন অংশে এটি প্রয়োগ করা যেতে পারে?
সাধারন মুখেই এটি দেওয়া হয়৷ পেশির সঞ্চালনের কারণে যে অংশে বলিরেখা পড়ে, সেখানেই এটি প্রয়োগ করা হয়৷ তাই বলে এই নয় যে শরীরের সব জায়গাতেই এটি ব্যবহার করা যাবে৷ অনেকেরই ভুল ধারণা থাকে যে, ঠোঁটের পাশে বা গালের নিচের অংশে বলিরেখা দেখা গেলে মানেই সেখানে বোটক্স করিয়ে নেওয়া যায়৷ চিকিৎসকেরাই পরীক্ষা করে দেখেন যে, ঠিক কোন অংশে বোটক্সের প্রয়োজন৷ সাধারণত মুখের উপরের অংশেই বোটক্স প্রয়োগ করা হয়৷ অনেক সময় হাতে বা পায়েও বোটক্স দেওয়া হয়৷ এছাড়াও অনেক সময় আন্ডারআর্মে ঘামের জন্যও বোটক্স দেওয়া যেতে পারে৷

এই চিকিৎসায় কোন ঝুঁকি রয়েছে কি?
না, সেই অর্থে ঝুঁকি একেবারেই নেই৷ এটি খুবই সহজ এবং সাধারণ চিকিৎসা পদ্ধতি৷ একবারেই এটি করা হয়ে যায়৷ অন্যান্য চিকিৎসা যেমন লেজার ট্রিটমেন্টের ক্ষেত্রে রোগীকে প্রায় ছ’ থেকে সাতবার চিকিৎসকের কাছে যেতে হয়৷কিন্তু, বোটক্সের ক্ষেত্রে একবারেই কাজ হয়ে যায়৷ রোগী আবার ছ’মাস বাদে চিকিৎসকের কাছে যান৷ তবে অবশ্যই এই টক্সিনের কোন ঝুঁকি না থাকলেও, যিনি এই চিকিৎসা করছেন তার অভিজ্ঞতা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়৷ অনভিজ্ঞ কেউ যদি এমন করে থাকেন, তবে চোখ বন্ধ হয়ে যেতে পারে৷ ভ্রু’র উপর নিচে হয়ে যেতে পারে , অনেকক্ষেতে রোগী প্যারালাইসিস পর্যন্ত হয়ে যেতে পারেন৷

নির্দিষ্ট সময়েই আগেই যদি কেউ আবার বোটক্সের ডোজ নেন তবে তার ক্ষেত্রে কী কোন শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে?
সমস্যা তেমন কিছু একেবারেই নেই৷ কারণ ভারতে সাধারণত একই ধরনের টক্সিন ব্যবহার করা হয়ে থাকে৷ ফলে, কেউ যদি অন্য কোথাও থেকে এই ইনজেকশন নিয়ে থাকেন, তবে শারীরিক সমস্যা কিছুই দেখা যায় না৷ তবে, অনেকক্ষেত্রে চিকিৎসকেরা চাইনিজ বোটক্সও ব্যবহার করে থাকেন৷ তাই অন্য কোথাও গেলে অভিজ্ঞ চিকিৎসকের থেকে অবশ্যই জেনে নিতে হবে যে কোন বোটক্স তিনি আপনার শরীরে ইনজেক্ট করতে চলেছেন৷

কারা সাধারণত বোটক্স করেন বা করতে পারেন?
বোটক্স করানো জন্য সাধারণ কোন বয়স সীমা নেই৷ তবে বোটক্স যেহেতু বলিরেখা কমানোর জন্য করা হয়, তাই নির্দিষ্ট বয়সের পরেই রোগীরা আসেন৷ এই ট্রিটমেন্টের আগে রোগীর ডাক্তারি ইতিহাস নেওয়া জরুরি৷ বোটক্স যেহেতু মাসল ট্রিটমেন্ট, তাই রোগীর পেশিজনিত কোন সমস্যা আছে কিনা তা দেখে নেওয়া অত্যন্ত প্রয়োজনীয়৷ অনেক সময় দেখা যায়, বিয়ের আগে অনেকে বোটক্স করানোর জন্য আসেন৷ কারণ, মেকআপ করার পর হাসলে বা কথা বললেই মুখে ভাঁজ দেখা যায়৷ তাই শুধু সেইদিনের জন্যও অনেকে বোটক্স করে থাকেন৷

প্রতি ছ’মাস অন্তর বোটক্স নেওয়া কী প্রয়োজনীয়?
না একেবারেই না৷ অনেকেই মাত্র একবারই হয়ত বোটক্স করান৷ কিন্তু একবার নিলেই যে বার বার নিতে হবে, তার কোন মানে নেই৷ ছ’মাস বাদে বলিরেখা আবার আগের মতই হয়ে যায় এবং এর কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায় না৷ তবে যারা একবার বোটক্স করেছেন তাদের এটি এমনই পছন্দ হয়ে যায় ফলে ছ’মাস বাদে তারা নিজেদের রূপের টানেই ফিরে আসেন৷

বোটক্স ট্রিটমেন্ট নেওয়ার আগে কী কোন নিয়ম মেনে চলতে হয়?
বোটক্স এমন এক চিকিৎস,  যা যে কেউ যখন খুশি করতে পারেন৷ এর জন্য আলাদা করে কোন নিয়ম পালন করার প্রয়োজন নেই৷ মুম্বইয়ে বোটক্স এতটাই প্রচলিত যে, মহিলারা কিটি পার্টি করার মতো বোটক্স পার্টি করে থাকেন৷ এর জন্য কোন হাসপাতাল বা অপারেশন থিয়েটারের প্রয়োজন পরে না৷ একজন অভিজ্ঞ চিকিৎসক থাকলেই যেখানে খুশি এবং যখন খুশি এটি করা যায়৷

বোটক্স ট্রিটমেন্টের আর কোনও উপকারিতা রয়েছে কী?
বোটক্স বলিরেখা কমাতে যেমন অত্যন্ত পরিমাণে সক্ষম তেমন পেশিকে আরাম দিতেও এটি অনবদ্য কাজ করে৷ আবার অনেকের যদি মাইগ্রেনের সমস্যা থাকে, তবে তারাও কিন্তু ব্যাথা থেকে আরাম পেতে পারেন৷ আমার নিজের মাইগ্রেনের সমস্যা রয়েছে৷ তাই অনেকসময় ব্যথা থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য আমি নিজেই বোটক্স নিয়ে থাকি৷

বোটক্স করালে এই প্রভাব কী সঙ্গে সঙ্গে চোখে পড়বে?
না বোটক্সের প্রভাব পড়তে অন্তত ছ’ থেকে সাতদিন সময় লাগে৷ সঙ্গে সঙ্গে কোন প্রভাব সেভাবে চোখে পড়ে না৷ যিনি বোটক্স নিয়েছেন তিনি তিনদিনেই বুঝতে পারবেন যে বলিরেখা কম হচ্ছে৷ সাত থেকে ১০ দিনের মধ্যে বলিরেখা একেবারেই কম হয়ে যাবে৷

পুরুষরাও বোটক্স নিতে পারেন?
অবশ্যই, নারী পুরুষ উভয়েই বোটক্স ট্রিটমেন্ট করাতে পারেন৷ শুধু পার্থক্য একটাই, তা হল ইউনিট৷ বোটক্সের ইনজেকশন ইউনিট মেপে দেওয়া হয়৷ তাই, মহিলাদের তুলনায় পুরুষদের পেশি যেহেতু তুলনামূলক বেশি হয়, তাই মহিলাদের থেকে পুরুষদের কিছু ইউনিট বেশি লাগে৷

বোটক্স ট্রিটমেন্টের খরচ কত?
বোটক্সের মোট খরচ সেইভাবে বলা যায় না৷ কারণ, প্রতিটি মানুষের আলাদা আলাদা ইউনিট বোটক্স প্রয়োজন হয়৷ তাই খরচও আলাদাই হয়৷ বোটক্সের ইউনিট প্রতি দাম হয়, তাই কার কত ইউনিট প্রয়োজন তার উপর খরচের পরিমাণ নির্ভর করে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here