প্রধান বিচারপতি কি আসলে ক্যান্সারে আক্রান্ত ??

0
36

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত বলে রাষ্ট্রপতির কাছে লেখা চিঠিতে উল্লেখ করেছেন বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের নিজ কার্যালয়ে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তাহলে এখন প্রশ্ন হলো কে দায়িত্ব পালন করবেন? সংবিধানের ৫৭ নম্বর অনুচ্ছেদে বলা আছে আপিল বিভাগের কর্মে জ্যেষ্ঠতম বিচারপতি অস্থায়ী প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। এ জন্যই প্রধান বিচারপতি তার ছুটিতে যাওয়ার বিষয়টি রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধান বিচারপতির চিঠিটি সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রারের মাধ্যমে আইন মন্ত্রণালয়ে আসার পর আমরা বিষয়টি জানতে পেরেছি। পরে চিঠিটি আইন মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় হয়ে রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ে যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধান বিচারপতির ছুটি অনুমোদনের কোনও বিষয় নেই। প্রধান বিচারপতি নিজেই নিজের ছুটি মঞ্জুর করতে পারেন এটা অনুমোদনের কোনও বিষয় নয়।

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘ তাহলে এখন প্রশ্ন হলো কে দায়িত্ব পালন করবেন? সংবিধানের ৫৭ নম্বর অনুচ্ছেদে বলা আছে আপিল বিভাগের কর্মে জ্যেষ্ঠতম বিচারপতি অস্থায়ী প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। এ জন্যই প্রধান বিচারপতি তার ছুটিতে যাওয়ার বিষয়টি রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন।’

তিনি বলেন, ‘প্রধান বিচারপতিকে ছুটিতে পাঠাতে চাপ প্রয়োগ করা হয়েছে- এমন অভিযোগ যারা করেন তাদের অভিযোগ ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ প্রণোদিত। যারা প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে ষড়যন্ত্রের জাল বুনেছিলেন তারাই তার ছুটিতে যাওয়া নিয়ে চিৎকার করছে। তারা গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার ধারাবাহিকতাকে ব্যহত করতে চেয়েছিলেন। এ ধরনের স্প্যাকুলেশন করার কোনও কারণ নেই। ওনারা রে কেন স্প্যাকুলেশন করেন তা আমি বুঝি না। আমার মনে হয় ওনারা কিছু একটা ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা করছিলেন। এ জন্যই তারা কান্নাকাটি শুরু করেছেন।’

আনিসুল হক বলেন, ‘ প্রধান বিচারপতি জানিয়েছেন তিনি অসুস্থ, আমরা তাকে বিশ্বাস করি। এর ওপর আমি কোনও প্রশ্ন করতে রাজি নই।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ছুটি শেষ করে তিনি স্বপদে ফিরে আসুক, দায়িত্ব পালন করুক। তা আমি চাই এবং আল্লাহর কাছে সেই দোয়া করি।’

এর আগে আইনমন্ত্রণালয়ের সচিব আবু সালেহ শেখ মোহাম্মদ জহিরুল হক স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়, ‘রাষ্ট্রপতি সংবিধানের ৫৭ নম্বর অনুচ্ছেদ অনুযায়ী প্রধান বিচারপতির শারীরিক অসুস্থতার কারণে আগামী ৩ অক্টোবর থেকে পহেলা নভেম্বর পর্যন্ত ৩০ দিনের ছুটির আবেদন মঞ্জুর করেছেন এবং প্রধান বিচারপতির ছুটিকালীন সময়ে আপিল বিভাগের কর্মে প্রবীণতম বিচারক বিচারপতি আবদুল ওয়াহহাব মিঞাকে প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব পালনের দায়িত্ব দিয়েছেন।’

উল্লেখ্য, গত সোমবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা রাষ্ট্রপতির কাছে এক মাসের ছুটির জন্য আবদন করেন। সোমবার বিকাল ৩টার দিকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি রাষ্ট্রপতির কাছে তিনি পাঠান। প্রধান বিচারপতি ছুটিতে থাকায় সংবিধানের ৯৭ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি বিচারপতি ওয়াহহাব মিঞাকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেন।

আরও জানতে আমাদের সঙ্গে থাকুন…..

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here