ট্রাম্পকে ‘আঙুল’দেখানো! অবশেষে যে পরিনতি হলো সেই নারীর

0
21

Middle-Finger-Up- to trump

হোয়াইট হাউস থেকে বেরিয়ে সাঁই সাঁই করে পার্শ্ববর্তী গলফ কোর্সে যাচ্ছিল প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের গাড়িবহর। সেই রাস্তা ধরে সাইকেল চালিয়ে যাচ্ছিলেন মধ্যবয়সী নারী জুলি ব্রিস্কম্যান।

রিপাবলিকান ট্রাম্পের গাড়িবহর দেখেই মাথায় রক্ত উঠে গেল কট্টর ডেমোক্র্যাট সমর্থক এ নারীর। কিছু একটা যদি বলতে পারতেন ট্রাম্পকে, শান্ত হতে পারতেন। কী করা, কী করা! সোজা বাম হাত বের করে ‘মধ্যম আঙুল’ দেখিয়ে দিলেন অপছন্দের প্রেসিডেন্টকে উদ্দেশ্য করে।

মনকে কিছুটা মানানো গেল। যাক, প্রেসিডেন্টের কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ হিসেবে ‘লোকটা’র গাড়িবহরকে তো অন্তত ‘মধ্যম আঙুল’ দেখানো গেল।

কিন্তু তার এই ‘প্রতিবাদ’ ভালোভাবে নিলো না জুলির কর্মস্থল নির্মাতা প্রতিষ্ঠান আকিমা এলএলসি। প্রেসিডেন্টকে ‘আঙুল’ দেখানোর দায়ে তাকে চাকরি থেকে বিদায় করে দিয়েছে তারা।

২৮ অক্টোবরের ঘটনাটির বর্ণনা দিচ্ছিলেন জুলি। ‘তিনি (ট্রাম্প) আমার পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন, এটা দেখে আমার রক্ত গরম হয়ে গেল। মনে হলো, তিনি আবারও গলফ কোর্সে যাচ্ছেন। আর সইলো না…।’

জুলি যখন প্রেসিডেন্টের গাড়িবহরের দিকে আঙুল তুললেন, বহরের ভেতরে থাকা এএফপি’র হোয়াইট হাউস ফটোগ্রাফার ব্রেন্ডন স্মিয়ালস্কি তখন ক্যামেরা বের করে ক্লিক করছিলেন। পেছন থেকে ক্লিকে বন্দি হয়ে গেল সাইকেল আরোহী জুলির ‘মধ্যম আঙুল প্রদর্শন’ও।

সেই ছবিটি মুহূর্তেই সংবাদ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লো। নজরে এলো জুলিরও। তিনি বুঝতে পারেন, এটা যে তিনিই ছিলেন। জুলি নিজের সে ছবিটি তার ফেসবুক ও টুইটার অ্যাকাউন্টে গর্বের কথা জানিয়ে প্রকাশ করেন।

আর তা চোখে পড়লেই কোম্পানির পক্ষ থেকে জুলিকে বলা হয়, ‘আপনার সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক ছিন্ন করতে হচ্ছে।’

চাকরি হারানোর পর ২ সন্তানের মা জুলির কোনো বক্তব্য মেলেনি। বক্তব্য মেলেনি হোয়াইট হাউসেরও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here