টানা বৃষ্টির কারনে দেশের বিভিন্ন স্থানে বাঁধ ভেঙে অর্ধশত গ্রাম প্লাবিত

0
16

Break the dam and the village flooded

কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি, ঝড়োবাতাস ও জোয়ারের পানিতে দেশের বিভিন্ন স্থানে জনজীবনে ব্যাপক দুর্ভোগ নেমে আসে। সাগর ও নদীতে অস্বাভাবিক জোয়ারের চাপে কক্সবাজার, কুমিল্লা, ভোলা, বাগেরহাটসহ দেশের কয়েকটি জেলায় বাঁধ ভেঙে প্রায় অর্ধশত গ্রাম প্লাবিত হয়। তলিয়ে যায় বিস্তীর্ণ এলাকার ফসলি জমি ও ঘরবাড়ি। মনপুরায় বিধ্বস্ত ঘরসহ ৩ জন মেঘনায় ভেসে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। রাত ৯টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাদের সন্ধান পাওয়া যায়নি। শরণখোলায় বালু ও মাটির বস্তা দিয়ে এলাকাবাসী বাঁধ রক্ষার চেষ্টা করছেন।

দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে দক্ষিণাঞ্চলের অভ্যন্তরীণ সকল রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ। অনেক জেলায় স্কুল-কলেজে পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। টানা বর্ষণে দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষ কর্মহীন হয়ে চরম বিপাকে পড়েন। ভোগান্তি পোহাতে হয় অফিসগামী লোকজনকে । চট্টগ্রামে বৃষ্টি বাতাস দুর্যোগে বন্দরের কার্যক্রম ব্যাহত হয়। গোপালগঞ্জে শনিবার সকাল পর্যন্ত দেশের সর্বোচ্চ ২৭১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

নিম্নচাপের প্রভাবে সাগরে জোয়ারের পানি বাড়ায় শুক্রবার রাতে ও শনিবার দিনের জোয়ারে গোমাতলীর ৬ নম্বর ও ৮ নম্বর স্লুইচ গেইট এলাকার বেড়িবাঁধ ভেঙে বৃহত্তর গোমাতলীর ৮ গ্রাম পানিতে প্লাবিত হয়েছে। ডুবে গেছে রাস্তাঘাট। এছাড়া পেকুয়ায় বেড়িবাঁধ ভেঙে সাগরের পানিতে প্লাবিত হয়েছে রাজাখালী ইউনিয়নের বকশিয়া ঘোনা ও নতুন ঘোনা গ্রাম। এতে ওই এলাকার চিংড়ি ঘের ও কাচা বসতঘরের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কিছু কিছু এলাকায় বেড়িবাঁধ উপচে সাগরের পানি ঢুকে ব্যাপক এলাকা প্লাবিত হয়েছে।

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়নে শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে টানা বৃষ্টি ও প্রবল স্রোতের কারণে কাঁকড়ি নদীর ঘাসিগ্রাম পয়েন্টে বাঁধের প্রায় ৪০ ফুট এলাকাজুড়ে ভাঙনের সৃষ্টি হয়। এতে ঘাসিগ্রাম, পরানপুর, দাতামা, বালিমুড়িসহ ২০ গ্রামে পানি ঢুকে পড়ে।

মনপুরার ভোলা উপজেলার হাজির হাট ইউনিয়নের চৌধুরী বাজারে নতুন বেড়িবাঁধ ভেঙে পুর্ব সোনারচর গ্রাম, নাইবের হাট পশ্চিম সোনারচর, পুর্বকুলাগাজীর তালুকসহ ৬ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এসময় ১টি ঘরসহ ৩ জন ভেসে গেছেন। তিনজনই নিখোঁজ রয়েছেন। এরা হলেন, ইলিয়াস, রুহুল আমিন ও রাহাত।

হাতিয়া (নোয়াখালী) উপজেলায় কাঁচা ঘরবাড়ি ও ২০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এ সময় ঘর চাপা পড়ে চরইশ্বর ইউনিয়নে হেলাল উদ্দিন (১৫) ও সাহাব উদ্দিন (১৭) নামে দুই কিশোর গুরুতর আহত হয়। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

শরণখোলা (বাগেরহাট) উপজেলায় বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে নির্মাণাধীন পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৩৫/১ পোল্ডারের বেড়িবাঁধের ৩টি পয়েন্টে ভেঙে এলাকায় পানি ঢুকে পড়েছে। আরো ৩টি পয়েন্টে ভাঙন দেখা দিয়েছে। বালু ও মাটির বস্তা ফেলে বাঁধ রক্ষার চেষ্টা করছেন এলাকাবাসী।

পিরোজপুর সদরসহ বিভিন্ন উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। নাজিরপুর, কাউখালী, ইন্দুরকানী উপজেলার ৭০ গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। তলিয়ে গেছে ফসলী জমি, মাছের ঘের, পানের বরজ, কলা ও সবজি বাগান। বিভিন্ন এলাকায় সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা।

বরিশাল বাসিন্দারা পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। সদর উপজেলাসহ বাবুগঞ্জ, উজিরপুর, আগৈলঝাড়া, বাকেরগঞ্জ, হিজলা, মুলাদী ও মেহেন্দিগঞ্জের আমন ধানের বীজতলার ক্ষতির কথা জানিয়েছেন কৃষকরা। বিভিন্ন পুকুর পানিতে তলিয়ে মাছ বের হয়ে যাচ্ছে। নেটের মশারী দিয়ে মাছ রক্ষার চেষ্টা করছেন চাষিরা।

গোপালগঞ্জ জেলায় ২৭১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। যা দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত বলে নিশ্চিত করেছে গোপালগঞ্জ আবহাওয়া অফিস। শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে গতকাল শনিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘন্টায় এ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। এতে জেলার টুঙ্গিপাড়া ও কোটালীপাড়া এলাকায় কয়েকশ’ মাছের ঘের ভেসে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। পৌর এলাকার বাড়ি-ঘরে পানি ঢুকে পড়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here