খুন হবার আগে যা বলেছিল ৯ বছরের মেয়েটি!

0
49

Before the murder1

রাজধানীর উত্তর বাড্ডার আলোচিত বাবা-মেয়ে হত্যার ঘটনায় একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য বেড়িয়ে আসতে শুরু করেছে। পরকীয়া সম্পর্কের কথা জেনে যাওয়ায় প্রেমিকের সঙ্গে মিলে স্বামী জামিল শেখকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিলেন আরজিনা বেগম। এ হত্যা দৃশ্য দেখে ফেলেছিল আর্জিনার নয় বছরের মেয়ে নুসরাত। হত্যাকান্ডের সময় ঘুমিয়ে ছিল নুসরাত। হঠাৎ ঘুম থেকে জাগ্রত হয়ে দেখে তার বাবাকে হত্যা করা হচ্ছে। সে বলতে থাকে, তোমরা বাবাকে মারছ কেন? এরপর তাকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করা হয়।

শনিবার (৪ অক্টোবর) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া কেন্দ্রে এক সংবাদ সম্মেলনে গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মোশতাক আহমেদ এসব তথ্য জানান। পুলিশ জানায়, বাড্ডার হোসেন মার্কেটের ময়নারটেক এলাকার গোরস্থান রোডের ৩০৬ নম্বর বাড়ির তৃতীয় তলায় থাকতেন প্রাইভেট কার চালক জামিল শেখ। সেখানে তাদের সঙ্গে সাবলেট ভাড়া থাকতেন শাহিন। তার সঙ্গেই এক পর্যায়ে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন আরজিনা।

বৃহস্পতিবার সকালে বাসা থেকে জামিল ও তার মেয়ে নুসরাতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর স্ত্রী আরজিনা জানায়, ডাকাতরা তার স্বামী ও মেয়েকে খুন করে পালিয়ে গেছে। তবে ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে শুক্রবার নিহত জামিলের স্ত্রী আরজিনাকে আটক করা হয়। এরপর খুলনা থেকে আটক করা হয় নিহতের বাসার সাবলেট ভাড়াটিয়া শাহিনকে।

পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের আরজিনা ও শাহিন জানায়, তাদের মধ্যকার পরকীয়ার অনৈতিক সম্পর্কের কথা জেনে যাওয়ার কারণে জামিলকে হত্যার সিদ্ধান্ত নেয় তারা। পুলিশকে তারা আরও জানায়, মেয়ে নুসরাতকে হত্যার কোনো পরিকল্পনা না থাকলেও, মেয়ে বাবাকে হত্যার দৃশ্য দেখে ফেলায় তাকেও পরে হত্যা করা হয়।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর উত্তর বাড্ডার হোসেনবাগ মার্কেটের পাশে একটি বাসার ছাদ থেকে জামিল শেখ ও তার শিশুকন্যা নুসরাতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। জামিল শেখ (৩৮) গোপালগঞ্জ সদরের করপাড়া ইউনিয়নের বনপাড়া গ্রামের মৃত বেলায়েত শেখের ছেলে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here