কেন ট্রাম্পের মুখে রাশিয়ার পতাকা ছুঁড়ে মারা হল

0
20

Throwing the flag to the trump

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুখে রাশিয়ার পতাকা ছুঁড়ে মারলেন এক বিক্ষোভকারী। কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটল হিলে রিপাবলিকান সিনেটরদের সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজে অংশ নিতে যাওয়ার সময় এ বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখে পড়েন তিনি।

গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকা এক ব্যক্তি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা মিচ ম্যাককনয়েলের দিকে ছোট আকৃতির কয়েকটি পতাকা নিক্ষেপ করেন। ট্রাম্পের রাশিয়াপ্রীতির প্রতিবাদ জানাতে লোকটি এ কাজ করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
পুলিশ লোকটিকে গ্রেপ্তার করে এবং তার পরিচয় জানা যায়। তার নাম রায়ান ক্লেইটন। তিনি চিৎকার করে বলছিলেন, ট্রাম্প একজন বিশ্বাসঘাতক। নিরাপত্তারক্ষীরা তাকে ধরে ফেলার পরও তিনি চেচিয়ে বলতে থাকেন, রাশিয়া সরকারের চরদের সঙ্গে আঁতাত করেছেন প্রেসিডেন্ট। কর হ্রাসের ইস্যুর পরিবর্তে কংগ্রেসে বিশ্বাসঘাতকতার বিষয়টি উত্থাপন করা উচিত। এ ঘটনায় ট্রাম্পের কোনো বিপদ হয়নি। কিন্তু ক্যাপিটল হিলের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

সাংবাদিকসহ সাধারণ মানুষ পরিদর্শন বা কারো সঙ্গে দেখা করার জন্য ক্যাপিটল হিলের ভেতরে ঢুকতে পারে। কিন্তু মেটাল ডিটেক্টরের মধ্যে দিয়ে আসতে হয় তাদের।
ক্যামেরার সামনে ক্লেইটন নিজেকে গোয়েন্দা বিভাগের এজেন্ট হিসেবে পরিচয় দেন। তিনি দাবি করেন, অনলাইনভিত্তিক আমেরিকানস টেক অ্যাকশন গ্রুপের সদস্য তিনি। সবার জন্য অর্থনীতি, ইন্টারনেট সেবা উন্মুক্ত রাখাসহ মুক্ত আমেরিকার দাবিতে কাজ করে গ্রুপটি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো প্রতিক্রিয়া দেখায়নি হোয়াইট হাউস। এদিকে, জুলাই মাসে এ ধরনের আরেকটি কাজের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন ক্লেইটন। ট্রাম্পের জামাতা জ্যারেড কুশনারের হাতে রাশিয়ার পতাকা ধরিয়ে দিয়ে তাকে তাতে স্বাক্ষর দিতে বলেছিলেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here