আইসিসির কাছে ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের নালিশ

0
23

দ্বিপক্ষীয় ক্রিকেট সিরিজ খেলার প্রতিশ্রুতি রক্ষা না করায় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের বিরুদ্ধে আইসিসির কাছে নালিশ করেছে পাকিস্তানের ক্রিকেট বোর্ড। সেখানে সমাধান না হলে তারা আদালতে যাবে বলেও জানিয়ে দিয়েছে।

আইসিসির কাছে ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের নালিশ

আইসিসির কাছে এর সমাধান না হলে বিষয়টি আদালতে নিয়ে যেতে যুক্তরাজ্যভিত্তিক একটি আইনি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও পরামর্শ করছে পাকিস্তানের ক্রিকেট বোর্ড। কারণ, এর ফলে তারা আর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি হচ্ছে বলে বলছে পিসিবি।

পিসিবির চেয়ারম্যান নিজাম শেঠি ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোকে বলেছেন, ভারতের সঙ্গে আমাদের আলোচনা শেষ হয়ে গেছে। এসব প্রক্রিয়া শেষ, সুতরাং পরবর্তী প্রক্রিয়া শুরু হবে।
তিনি বলছেন, আগামী একমাস বা সর্ব্বোচ্চ দুই মাসের মধ্যে আমরা আবার আইসিসির কাছে যাবো। সালিশের জন্য তিনজন প্রতিনিধি মনোনয়ন চেয়ে আইসিসির কাছে আমরা লিখিত চিঠি দিয়েছে এবং এর মধ্যেই একজনকে মনোনয়ন দিয়েছি।

এ সময় শেঠির পাশে বসা ছিলেন আইসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেভিড রিচার্ডসন। তিনি বলছেন, “আমরা চাই না, আইসিসির সদস্য দেশগুলো পরস্পরের বিরুদ্ধে লড়াই করুক। যেহেতু একটি বিরোধ তৈরি হয়েছে, আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী এক্ষেত্রে পদক্ষেপ নেয়া হবে। সেই প্রক্রিয়াটি শুরু হয়েছে”।

দু্‌ই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক ক্রিকেট সিরিজের বিষয়ে দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ড সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে, আইসিসি শুধুমাত্র সহযোগিতা করে।
লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, উভয় দেশের বোর্ড মিলে সমাধানের চেষ্টা করবে। কিন্তু দুই মাসের মধ্যে কোনো সমাধান না হলে, আইসিসির সালিশ বোর্ড শুনানি করবে। তারা যে সিদ্ধান্ত দেবে, সেটাই চূড়ান্ত এবং এর বিরুদ্ধে কোনো আপিল করা যাবে না।
২০১৪ সালে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যেকার সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী, ২০১৫ সাল থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে পাকিস্তানের সঙ্গে ছয়টি সিরিজ খেলার কথা রয়েছে ভারতের। এর মধ্যে চারটি পাকিস্তানে হওয়ার কথা, যার মধ্যে ১৪টি টেস্ট আর ৩০টি ওয়ানডে আর ১২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ রয়েছে।

কিন্তু ২০০৮ সালে মুম্বাই হামলার পর থেকে পাকিস্তানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় ক্রিকেট খেলছে না ভারত। যদিও আইসিসি টুর্নামেন্টগুলোতে তারা খেলছে।
পাকিস্তানে আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরাতে আইসিসি একাদশ নামে যে দল গঠন করা হয়েছে, তাতেও অংশ নেয়নি ভারতের কোনো ক্রিকেটার।

নভেম্বরে পাকিস্তানে যাবে গেইলরা
আগামী নভেম্বরে তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজ খেলতে পাকিস্তান সফরে যাবে গেইলরা। পিসিবি চেয়ারম্যান নাজাম শেঠী ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের এই সফরটির ব্যাপারে তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শেঠী জানিয়েছেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের সাথে এ সম্পর্কিত সমঝোতা ইতোমধ্যেই চূড়ান্ত হয়েছে। লাহোরে নভেম্বর মাসে তিনটি টি২০ ম্যাচ খেলতে ক্যারিবীয় বোর্ড রাজী হয়েছে। স্থানীয় একটি টেলিভিশন চ্যানেলে কথা বলতে গিয়ে শেঠী এই তথ্য জানিয়ে বলেছেন শিগগিরই সিরিজের সূচি ঘোষণা করা হবে।

তিনি আরো বলেছেন, আগামী ২৯ অক্টোবর লাহোরে একটি টি২০ ম্যাচ খেলতে শ্রীলংকা পাকিস্তান সফরে আসবে। এ সম্পর্কে শেঠী বলেন, শ্রীলংকাকে অন্তত দুটি ম্যাচ খেলার অনুরোধ জানিয়েছে পিসিবি।

দুটি সিরিজই যদি সময়মত অনুষ্ঠিত হয় তবে এটা পাকিস্তান ক্রিকেটে একটি ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলংকান ক্রিকেটারদের বহনকারী বাসে সন্ত্রাসী হামলার পরে এই প্রথম পাকিস্তানের মাটিতে কোন আন্তর্জাতিক সিরিজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ওই ঘটনার পরে কোন টেস্ট খেলুড়ে দেশই নিরাপত্তার অযুহাতে পাকিস্তান সফরে আসেনি। যদিও ২০১৫ সালে মে মাসে সীমিত ওভারের ম্যাচ খেলতে জিম্বাবুয়েকে আনতে সক্ষম হয়েছিল পিসিবি। কিন্তু ওই ম্যাচগুলো আইসিসি অনুমোদিত ছিল না। বর্তমানে বিশ্ব একাদশের বিপক্ষে লাহোরে পাকিস্তানের তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজ চলছে।

শেঠী বলেছেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর পাকিস্তানে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ ফিরিয়ে আনার ব্যপারে একটি মাইলফলক হিসেবে কাজ করবে। এর মাধ্যমে অন্য দেশগুলোর সাথেও সমঝোতায় পৌঁছানোর একটি পথ তৈরি হবে। বর্তমানে বিশ্ব একাদশের হয়ে পাঁচজন দক্ষিণ আফ্রিকান খেলোয়াড় লাহোরে খেলছেন। এর ফলে আগামী বছর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলার বিষয়ে সেখানকার বোর্ডের সাথে আলোচনার একটি ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

এ সম্পর্কে পিসিবি চেয়ারম্যান বলেন, বর্তমানে আমরা শুধুমাত্র লাহোরে ম্যাচ আয়োজন করলেও ধীরে ধীরে করাচি, ফয়সালাবাদ, রাওয়ালপিন্ডি ও মুলতানের মত টেস্ট ভেন্যুগুলোকেও আমরা কাজে লাগাবো। আগামী বছর ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তান সুপার লীগের অন্তত চারটি ম্যাচ করাচিতে আয়োজনের ইচ্ছা পিসিবির রয়েছে।

সিরিয়া-অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপ প্লে-অফ ম্যাচটি মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত হবে
আগামী মাসে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বিশ্বকাপ এশিয়ান বাছাইপর্বের প্লে-অফ ম্যাচের প্রথম লেগে মুখোমুখি হবে সিরিয়া। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচটি মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত হবে বলে ফিফা নিশ্চিত করেছে।

আগামী ৫ অক্টোবর ম্যাচটি মেলাকার হাং জেবাত স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। এই সম্পর্কিত একটি আনুষ্ঠনিক নিশ্চয়তা সকারুজরা ইতোমধ্যেই পেয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে ফুটবল ফেডারেশন অস্ট্রেলিয়া। এর পাঁচ দিন পরে সিডনিতে অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় লেগের ম্যাচটি।

বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে কখনই খেলার সুযোগ পায়নি যুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়া। দেশটিতে চলমান গৃহযুদ্ধের কারনে বাছাইপর্বে তাদের সবকটি হোম ম্যাচ নিরপেক্ষ ভেন্যু হিসেবে মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই ম্যাচে বিজয়ী দল নভেম্বরে কনকাকাফ অঞ্চলের চতুর্থ স্থান অর্জনকারী দলের সাথে হোম ও এ্যাওয়ে ম্যাচে অংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here