অবশেষে ধরা পড়লেন বিতর্কিত ধর্মগুরু রাম রহিমের কন্যা হানিপ্রীত

0
25

সর্বশেষ গত ২৫ আগস্ট তাকে জনসম্মুখে দেখা গিয়েছিল। এরপর বিতর্কিত ধর্মগুরু ও তার পালক বাবা রাম রহিমের সাজা হওয়ার পর তাকে আর প্রকাশ্যে দেখা যায়নি।

 

যদিও এই সময়ে তাকে আটকের জন্য বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালায় ভারতীয় পুলিশ। কিন্তু কোথায় তার সন্ধান মেলেনি। এরপরই কেউ কেউ বলতে শুরু করেন সীমানা পেরিয়ে হানিপ্রীত নেপালে আশ্রয় নিয়েছেন। তবে সব জল্পনার অবসান ঘটে রাম রহিমের পালিত কন্যার বিরুদ্ধে আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি পর।

সোমবার ভারতের একটি আদালত দেশদ্রোহিতা, হিংসায় মদত দেওয়া এবং রাম রহিমকে পালাতে সাহায্য করতে ষড়যন্ত্র করার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। আদালতের এই পরোয়ানা জারি হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই হানিপ্রীতের কথিত আইনজীবী জানান, তাঁর মক্কেল আগাম জামিনের জন্য দিল্লি হাইকোর্টে আবেদন করেছেন। তিনি আরও দাবি করেন, হানিপ্রীত দিল্লিতেই রয়েছেন। এরপরই, দিল্লিজুড়ে জোর তল্লাশি শুরু করে হরিয়ানা পুলিশ। যদিও এখন পর্যন্ত হানিপ্রীতকে গ্রেফতার করা যায়নি। তবে পুলিশের হাতে ধরা না পড়লেও গোপন ক্যামেরায় ধরা পড়লেন ৩৬ বছর বয়সী আলোচিত-সমালোচিত এই নারী।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির খবর, হানিপ্রীতের আইনজীবী দাবি করা ওই ব্যক্তির বাসার নিকটবর্তী বসানো একটি সিসি টিভি পুলিশের হাতে হস্তান্তর করেছেন তারই এক প্রতিবেশী। যেখানে দেখা যাচ্ছে হিজাব পরিহিত এক নারী ধীরে ধীরে দিল্লির রাস্তায় হেঁটে যাচ্ছেন। তার এক হাতে ঝুঁলে রয়েছে একটি হ্যান্ডব্যাগও। পুলিশের ধারণা এই নারীই বিতর্কিত ধর্মগুরু রাম রহিমের পালিত কন্যা হানিপ্রীত। আগাম জামিন পেতে তিনি ওই আইনজীবী দারস্থ হয়েছিলেন।

দিকে, দিল্লিতে রয়েছেন হানিপ্রীত এমন খবর কানে পৌঁছানো মাত্রই অনুসন্ধানে নেমেছেন পুলিশ। এরই অংশ হিসেবে মঙ্গলবার সকালে দক্ষিণ দিল্লিতে রাম রহিমের মালিকাধীন একটি বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। তবে সেখানে হানিপ্রীতের সন্ধান মেলেনি।

এদিকে,  পাঞ্চকুলা পুলিশের প্রধান এএস চাওয়ালা এনডিটিভিকে জানিয়েছেন, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে হানিপ্রীত আত্মসমর্পণ না করলে তাকে অপরাধী ঘোষণা করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here